শান্ত মুমিনুল জেদের কারণেই ঘুষি মেরে সেঞ্চুরি উদযাপন করেছিলেন

অনলাইন নিউজঃ  বাংলাদেশ টেস্ট ক্রিকেটের অধিনায়কত্বের দায়িত্ব পালন করছেন বাঁ-হাতি ব্যাটনম্যান মুমিনুল হক। জুয়াড়িদের প্রস্তাব গোপন করার অভিযোগে নিষিদ্ধ হন নিয়মিত টেস্ট অধিনায়ক ও বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। তার অবর্তমানে ভারত সফরের আগে নেতৃত্ব পান কক্সবাজারের বাঁ-হাতি মুমিনুল।

শান্ত স্বভাবের ক্রিকেটার হিসেবে পরিচিতি আছে মুমিনুল হকের। নিজের বড় কোনও অর্জনে সেভাবে আবেগ প্রকাশ করেন না। কিন্তু ২০১৮ সালে টেস্টে সেঞ্চুরি করেই একটু ভিন্নভাবে উদযাপন করেছিলেন। শূন্যে ছুঁড়েছেন ঘুষি! জানুয়ারিতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম টেস্টের প্রথম ইনিংসে মুমিনুলের ওই উদযাপনে কিছুটা ক্ষোভের প্রকাশ ঘটেছিল।

গতকাল শনিবার (১৬ মে) নতুন ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবালের লাইভ আড্ডায় সেই উদযাপনের কারণ তুলে ধরেছেন মুমিনুল।

ওই টেস্টে মুমিনুলের করা ১৭৬ রান ও ১০৫ রানের ওপর ভর করেই ড্র নিয়ে মাঠ ছাড়ে বাংলাদেশ। মুমিনুলকে করা তামিমের প্রশ্নটা ছিল- ‘মুমিনুল আমি তোর অনেকগুলো টেস্ট সেঞ্চুরি দেখছি। কিন্তু আমি লক্ষ্য করছি, তোর মধ্যে আবেগ খুব একটা কাজ করে না। আর যদি করেও থাকে, তাহলে সেটা তুই প্রকাশ করিস না। কিন্তু একটা ইনিংসের কথা আমার মনে আসছে। কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংয়ের বিপক্ষে যেটা আমরা প্রথম টেস্ট খেলেছি, শ্রীলঙ্কার সাথে। যা ওরা আমাদের দেশে এসে খেলেছে। সাধারণত তুই খুব অল্প উদযাপন করিস। কিন্তু সেদিন আমি তোকে প্রথমবারের মতো দেখেছি, খুব রাগের মাথায় উদযাপন করতে। এর পেছনের কাহিনি কী?’

উত্তরে মুমিনুল জানান, ‘সত্যি বলতে কী, হাথুরুর ইচ্ছাতেই আমি বাংলাদেশের শততম টেস্টে বাদ পড়েছিলাম। এছাড়াও বাংলাদেশ যেবার অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে জেতে, তখনকার আগে পরে মিলিয়ে আমার খারাপ সময় যাচ্ছিল।’ মূলত জেদের কারণেই ওমন উদযাপন করেছেন বলে জানান মুমিনুল, ‘আসলে সবার মতোই আমার ভেতরে তখন হালকা একটু জেদ কাজ করেছিল। বিষয়টা এমন না যে, আমি করে দেখিয়ে দেব- এমন কিছু ভেবেছি। তবে আমি চাচ্ছিলাম যে, কিছু একটা করতে। আর আল্লাহর রহমত ছিল, ভাগ্যও ভালো ছিল। আর আমার মনে হয়েছিল, তেমন ইনিংস না খেলতে পারলে টেস্ট দলে আমার জায়গা প্রশ্নবিদ্ধ হয়ে যেতো। ভাগ্যিস সেই ইনিংসটা হয়েছে, আর তাই আমার ভেতর থেকে অটোমেটিক উদযাপনটি হয়ে গিয়েছিল।’

শেয়ার করুন