রোনালদো বিহীন জুভেন্টাস জয়হীন পরপর ৪ ম্যাচ

অনলাইন নিউজঃ ফুটবল মাঠে জয় ছিনিয়ে নেওয়ার কৌশল যেন ভুলেই গেছে জুভেন্টাস। লিগের ম্যাচই তার উদাহরণ। যে জুভেন্টাস এক দশক ধরে ৯ বার শিরোপা জয় করেছে, রোনালদোর অনুপস্থিতিতে সেই জুভেন্টাসই এসি মিলানের বিপক্ষে ড্র করেছে।

গত মাসে জুভেন্টাস ছাড়ার ঘোষণা দেন রোনালদো। বর্তমানে আছেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে। ক্রীড়ামোদীরা বলছেন, জুভেন্টাস ছেড়ে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে জয়ভাগ্যটাও নিয়ে গেছেন তিনি।

খেলায় জুভেন্টাস নিজের মাঠে খেলার সুযোগ পেলেও খুব বেশি কাজে আসেনি। এসি মিলানের সঙ্গে ১-১ গোলে মাঠে ছাড়ে দলটি। শুরুতে আলভারো মোরাতার গোলে অগ্রগতি হলেও পরে এসি মিলানের হয়ে ক্রোয়েশিয়ান স্ট্রাইকার আনতে রেবিচ সমতা ফেরান। ফলে ড্র নিয়েই মাঠ ছাড়তে বাধ্য হয় জুভেন্টাস।

চার মিনিটের মাথায় এগোয় জুভেন্টাস। এরপর এসি মিলান কর্নার পেয়েছিলো। সেদিকে মনোযোগ দিতে গিয়ে নিজেদের রক্ষণ ফাঁকা করে ফেলেছিলো তারা। আর এই সুযোগই নিয়েছে জুভেন্টাস। দুর্দান্ত এক প্রতি আক্রমনে আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকার পাওলো দিবালার সহায়তা দলকে এগিয়ে নিয়ে যান স্প্যানিশ স্ট্রাইকার মোরাতা।

গত ২৫ বছরে জুভেন্টাসের হয়ে মিলানের বিপক্ষে এত দ্রুত কেউই গোল করতে পারেননি। ১৯৯৬ সালে তিন মিনিটে গোল করেন তখনকার ইতালির মিডফিল্ডার ও জুভেন্টাসের সাবেক কোচ আন্তোনিও কন্তে।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম রয়টার্সের পর্যালোচনায় উঠে এসেছে, ফুটবল ম্যাচের প্রথম অংশ জুভেন্টাসের হলে দ্বিতীয় অংশ নিশ্চিতভাবেই ছিলো এসি মিলানের। ৭৬ মিনিটে তার ফলও পেয়েছে রোজোনেরিরা। ইতালির মিডফিল্ডার সান্দ্রো তোনালির কর্নারে মাথা স্পর্শ করে দলকে সমতায় ফেরান ক্রোয়েশিয়ান স্ট্রাইকার আনতে রেবিচ। এ নিয়ে জুভেন্টাসের বিপক্ষে টানা তিন ম্যাচে গোল পেলে রেবিচ।

৮৭ মিনিটের দিকে ফরাসি ডিফেন্ডার পিয়েরে কালুলুর মাধ্যমে এসি মিলান আরেকটি সুযোগ পায়। কিন্তু এ সময় গোল হয়নি।

এই ম্যাচ দিয়ে লিগে প্রথম চার ম্যাচেই জুভেন্টাসের জয় অধরা থাকলো। নিজেদের ফুটবলের ইতিহাসে এই নিয়ে চার বার এমন হয়েছে।

শেয়ার করুন