ভারতীয় দূতাবাসের গাড়ী ও দামী জিনিসগুলো নিয়ে গেছে তালেবানেরা

অনলাইন নিউজঃ  তালেবান ক্ষমতার কেন্দ্রে চলে আসার পর দুইদিনের মধ্যেই দেশটির সঙ্গে বাণিজ্যিক সম্পর্ক ছিন্ন করেছে আফগানিস্তান। এবার ভারতের দুই দূতাবাসে তল্লাশি চালিয়েছে সংগঠনটি বলে জানা গেছে।

শুক্রবার (২০ আগস্ট) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস। ঘানি সরকারের বিদায়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও আফগানিস্তানের চলমান পরিস্থিতিতে সবচেয়ে উদ্বিগ্ন দেশগুলোর একটি ছিলো ভারত।

প্রতিবেদনে বলা হয়, আফগানিস্তানের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর কান্দাহার এবং তৃতীয় বৃহত্তম শহর হেরাতে অবস্থিত ভারতীয় দূতাবাসে তল্লাশি চালিয়েছে ইসলামিক সশস্ত্র গোষ্ঠী তালেবান। উক্ত দুই দূতাবাসের সবকটি গাড়ী ও অন্যান্য জিনিসপত্র গুলো নিয়ে গেছে তালেবান বাহিনী।

সেখানকার গণমাধ্যম গুলো জানিয়েছে, আফগানিস্তানে অবস্থিত দুই ভারতীয় দূতাবাসে তল্লাশি চালিয়েছে তালেবান। দূতাবাস দুইটি বন্ধ থাকলেও সেখানে প্রবেশ করে তল্লাশি চালানো হয়েছে। সেখানে প্রবেশ করে আলমারি খুলে বিভিন্ন গোপন নথিপত্রের খোঁজ করা হয়েছে বলে জানা গেছে। মূল্যবান জিনিসপত্র গুলোও সরিয়ে নিয়েছে তালেবানেরা।

এদিকে এনডিটির বরাদ দিয়ে জানায়, তল্লাশি চালানোর পাশাপাশি ভারতীয় ওই দুই দূতাবাসের বাইরে রাখা গাড়িগুলোও দখলে নিয়েছে তালেবান সদস্যরা। এছাড়া রাজধানী কাবুলে বাড়ি বাড়ি তল্লাশি অভিযানে করছে সংগঠনটি। সেখানে মূলত আফগান গোয়েন্দা সংস্থা এনডিএস’র কর্মীদের খোঁজ করেছে তারা। এমনকি সদ্য সাবেক সরকারের কর্মকর্তাসহ কর্মচারীদেরকেও খোজ করছে বলে জানানো হয়,।

হিন্দুস্তান টাইমস জানিয়েছে, কান্দাহার ও হেরাতের ভারতীয় দূতাবাসে তালেবান যোদ্ধাদের তল্লাশির খবর পাওয়া গেলেও জালালাবাদ ও কাবুল শহরে অবস্থিত দূতাবাসের পরিস্থিতি কি, তা এখনও জানা যায়নি। তবে সাবেক ঘানির সরকারের সহিত জড়িত থাকা সকলকেই কতল বা মৃত্যুদন্ড হতে পারে এমন আভাস তারা আগে থেকেই দিয়ে রেখেছে।

আফগানিস্তানে ভারতের চারটি কনস্যুলেট ছিল। কান্দাহার ও হেরাত ছাড়াও মাজার-ই-শরিফ ও কাবুলেও রয়েছে কনস্যুলেট।

সূত্র : এনডিটিভি

শেয়ার করুন