বিচিত্র কুমারের লেখা কবিতা “মনের ঠিকানা”

মনের ঠিকানা
-বিচিত্র কুমার
উতলা নদী আমাকে ভালোবেসে জল ছিটিয়ে
সাগরের বুকে একাকী হাতছানি দিয়ে ডাকে আমি যাইনি,
প্রজাপতি রঙ ছরিয়ে আমাকে কাছে ডাকে আমি যাইনি
কোকিল গান শুনিয়ে আমাকে ডাকে আমি যাইনি।
চাঁদপরীরা আমার দিকে তাকিয়ে হাসে চাইনি
নীল আকাশের তারারা চুপিচুপি ভালোবাসে জানি,
মনের দরজা খুলে কাছে ডাকে আমি যাইনি
ফুল কলিরা ছুটে ছুটে আসে আমি হাত বাড়াইনি।
হঠাৎ দেখি সুদূরে কে যেন দাঁড়িয়ে আছে এলোমেলো চুলে
যেন সবুজ পাতার ফাঁকে মুখটা তার ঢেকে কোন দিকে না চেয়ে,
মুখে তার আটা ময়দা নেই চোখে তার কাজল নেই
যেন অতি সাধারণ এক প্রকৃতির মেয়ে।
তোমার ভালোবাসা আমাকে শ্যাওলার মতো আঁকড়ে ধরেছে
আমি যেন তোমাকে ছেড়ে কোথাও যেতে পারছি না,
অবশেষে মুখোমুখি দাঁড়িয়ে মনটা যে হারিয়ে
তোমাকেই দিলাম আমার মনের ঠিকানা।

শেয়ার করুন