বাজারে তরমুজ বিক্রির সিন্ডিকেট কালীগঞ্জে অভিযানে নামলেন পৌর মেয়র আশরাফ

ফিরোজ আহম্মেদ , ঝিনাইদহ প্রতিনিধি॥ এবার মিটারে ওজন বা কেজি দরে তরমুজ বিক্রি বন্ধ করতে অভিযানে নামলেন কালীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আশরাফুল আলম আশরাফ।

তিনি সোমবার বিকালে কালীগঞ্জ মেইন বাসষ্ট্ধাসঢ়;ড সহ শহরের বিভিন্ন বাজারে তরমুজ ব্যাবসায়ীদের দোকানে দোকানে অভিযান চালান। এ সময়ে তিনি নির্দ্দেশনা দেন যে, এখন থেকে ওজন বাদেই প্রতি পিচ হিসাবে তরমুজ বিক্রয় করতে হবে। এরপরও যদি কেউ কেজি দরে বিক্রি করতে চায়, তাহলে তাকে ক্রেতাদের চাহিদা অনুয়ায়ী আড়াই’শ গ্রাম বা ৫’শ গ্রাম ওজনেরও তরমুজ দিতে হইবে। এ নিয়ম অমান্যকারীকে আগামীতে মোবাইল কোট করে জরিমানা করা হবে।

স্থানীয় ভ’ক্তভোগী সাধারন মানুষ তরমুজ ক্রেতারা জানান, বাপ দাদার আমল থেকেই তারা পিচ হিসাবে তরমুজ কিনে খেত। এছাড়াও সে সময়ে তরমুজ কেটে পিচ পিচও বিক্রয় করা হত। কিন্তু এ বছর চলতি মাস থেকেই হঠাৎ করে তরমুজ ব্যাবসায়ীরা সিন্ডিকেট করে ৪০ থেকে ৫০ টাকা কেজি দরে তরমুজ বিক্রি শুরু করেছে। বর্তমানে একটি তরমুজের ওজন ৫ থেকে প্রায় ১০ কেজি পর্ষন্ত। যার প্রতি পিচ মূল্য ৪/৫ শত টাকা। যা সাধারন
নিন্মআয়ের মানুষের পক্ষে কেনা একেবারেই অসম্ভব।

সাধারন ক্রেতারা আরো জানায়, তরমুজ ব্যবসায়ীরা বাইরের মোকাম থেকে প্রতি পিচ সংখ্যা হিসাবে তরমুজ কিনে আনে। কিন্তু এবারই তারা সিন্ডিকেড করে ক্রেতাদের নিকট ওজন কেজি দরে বিক্রয়ের নিয়ম চালু করেছে। এতে ক্রেতা সাধারনের তরমুজ ক্রয় অসম্ভব হয়ে উঠেছে।

এ নিয়ে অনেক স্থানেই তরমুজ বিক্রেতাদের সাথে ক্রেতারা বাক বিতন্ডায় জড়িয়ে পড়ছে।

সোমবার শহরে অভিযানকালে পৌর মেয়র আশরাফ জানান, ক্রেতা সাধারন মানুষের অসুবিধার কথা ভেবেই তিনি তরমুজ ব্যাবসায়ীদের দোকানে এসেছেন। তিনি পুর্বের নিয়মে পিচ হিসাবে তরমুজ বিক্রির নির্দ্দেশনা দিয়ে গেছেন।

শেয়ার করুন